মালয়েশিয়া যেতে কত টাকা লাগে? সরকারিভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার উপায় Malaysia Visa for Bangladesh

আপনি ওয়ার্ক ভিসায় মালয়েশিয়া যাওয়ার চিন্তা ভাবনা করছেন তাহলে চলুন জেনে নেই সরকারিভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার উপায়। নিরাপদে বিদেশ গমণ ও নির্দিষ্ট কাজ পাওয়ার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে সরকারি ভাবে যাওয়া। বর্তমানে মালয়েশিয়াতে প্রতি বছর লক্ষ লক্ষ শ্রমিক নিয়োগ করা হয়। সরকারি ভাবে আপনি খুব কম খরচে মালয়েশিয়ায় কাজ করতে যেতে পারবেন। 

তাই কিভাবে সরকারি ভাবে মালয়েশিয়া যাবেন এবং মালয়েশিয়া যেতে কত খরচ হবে সেই বিষয়ে আজকে বিস্তারিত জানবো। 

সরকারি ভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার উপায়

আমি প্রবাসী অ্যাপ বা নিকটস্থ জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস এর মাধ্যমে BMET রেজিষ্ট্রেশন সম্পুন্ন করে মালয়েশিয়ায় চাকরির আবেদন করা। 

বর্তমানে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন কোম্পানি বিভিন্ন ধরনের চাকরির নিয়োগ সার্কুলার প্রকাশ করেছে। এ সকল বিজ্ঞপ্তি দেখে নির্দিষ্ট জবে আবেদন করে সরকারি ভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার সুযোগ পাবেন।

মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রি েএবং প্রবাসি কল্যান মন্ত্রনালয় এক বৈঠকে নতুন কর্মসংস্থান তৈরি ও বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশের অবৈধ কর্মীদের বৈধকরন এর ব্যাপারে সমঝোতা হয়। 

সেই বৈঠকের তথ্য মতে কাজের জন্য বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়াতে দুই লক্ষ চল্লিশ হাজার লোকের কাজের সুযোগ দেওয়া হবে। সে জন্য প্রথমে মালয়েশিয়া ভিসার আবেদন ও বিএমইটি নিবন্ধন করে নিতে হবে। বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন ছাড়া মালয়েশিয়া যাওয়া যাবে না। 

মালয়েশিয়া যেতে কত টাকা লাগে সরকারিভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার উপায় ২০২৩ Malaysia Visa for Bangladesh
মালয়েশিয়া যেতে কত টাকা লাগে? সরকারিভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার উপায়

সরকারি ভাবে মালয়েশিয়া যেতে কত টাকা লাগে?

প্রবাসী কল্যাণ ও বিদেশী কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় কর্তৃক ঘোষনা থেকে জানা গেছে যে, সরকারিভাবে মালয়েশিয়া যেতে একজন ব্যক্তির ৭৮,০০০/- (আটাত্তর হাজার) টাকা খরচ হবে। 

See also  Tin Certificate ই টিন সার্টিফিকেট অনলাইন আবেদন। টিন সার্টিফিকেট বের করার নিয়ম।

মালয়েশিয়া কর্মী (শ্রমিক) ভিসার জন্য আবেদনকারী ব্যক্তির বিভিন্ন ধরনের খচর হয় যেমন-

  • পাসপোর্ট তৈরির খরচ
  • রেজিষ্ট্রেশন ফি খরচ
  • মেডিকেল চেক আপ
  • কল্যাণ ফি
  • সংশ্লিষ্ট রিক্রটিং এজেন্সির সার্ভিস ফি
  • বিমা ফি
  • স্মার্ট কার্ড বাবদ ফি ইত্যাদি খরচ হয়।

এছাড়া আরো অন্যান্য খরচ রয়েছে। যেমন-

  • বিমান ভাড়া (ফ্লাইট টিকেট)
  • অভিবাসন বিভাগ এর সিকিউরিটি ডিপজিট,
  • মালয়েশিয়া স্বাস্থ্য পরীক্ষা বাবদ ফি
  • করোনা টেষ্ট সহ অন্যান্য খরচ বহন করবে ঐ নিয়োগকারী সংস্থা।

একজন মালয়েশিয়া গামী কর্মীর উক্ত খরচ সহ সরকারি ভাবে সব মিলিয়ে ১ থেকে দেড় লক্ষ টাকার মতো খরচ হতে পারে। তাই কম খরচে মালয়েশিয়া যেতে চাইলে সরকারি ভাবে যাওয়ার চেষ্ট করতে পারেন। 

মালয়েশিয়া যাওয়ার পূর্বশর্ত

সরকারিভাবে মালয়েশিয়া যেতে চাইলে কিছু শর্ত রয়েছে সেগুলো অনুসরণ করতে হবে। 

  • আবেদনকারী ব্যক্তির বয়স ১৮ থেকে ৪৫ বছর হতে হবে। 
  • ভিসা আবেদনের পূর্বে BMET রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। 
  • নিয়োগ সংস্থা কোম্পনিতে সঠিক তথ্য দিয়ে আবেদন করতে হবে।
  • আমি প্রবাসী অ্যাপ এর মাধ্যমে বিএমইটি কমপ্লিট করতে হবে। 
  • মালয়েশিয়া কর্মী প্রেরণের আগ পর্যন্ত কোনো প্রতিষ্ঠান বা রিক্রোমেন্ট এজেন্সির সাথে লেনদেনে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। 
  • কোনো এজেন্সি বা ব্যক্তি বিদেশ পাঠানোর নামে অবৈধ লেনদেন করতে বললে বা করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

সরকারিভাবে মালয়েশিয়া যেতে কি কি লাগে?

  • পাসপোর্ট (দুই বছর মেয়াদ থাকতে হবে)
  • ভোটার আইডি কার্ড (এনআইডি কার্ড)
  • BMET কার্ড
  • মেডিকেল রিপোর্ট এর ডকুমেন্ট
  • কভিড-১৯ বা করোনার ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  • ওয়ার্ক পারমিট বা ভিসা সংগ্রহ করতে হবে।

মালয়েশিয়া ভিসা কত তারিখ চালু হবে?

মালয়েশিয়া যাওয়ার সরকারি আবেদন বর্তমানে বন্ধ রয়েছে। বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নতুন কর্মী নেওয়া স্থগিত আছে। 

মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন

আপনি চাইলে অনলাইনে মালয়েশিয়ার ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। এর জন্য বিএমইটি এর জেলা অফিসে গিয়ে অথবা আমি প্রবাসী অ্যাপ এর মাধ্যমে বিএমইটি রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। এর পর এই অ্যাপ থেকে অথবা রিক্রোরিং এজেন্সির মাধ্যমে চাকরির আবেদন করতে পারবেন। 

See also  ট্রেনের টিকেট কাটার নতুন নিয়ম e Ticket Railway bd Train Ticket bd

বাংলাদেশে ৪২ টি বিএমইটির কার্যালয় রয়েছে আর ১১ টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র রয়েছে। সেখানে আবেদন করার জন্য পাসপোর্ট,  সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি, সচল মোবাইল নম্বর, কোনো দক্ষতা থাকলে সেটার সনদ সাথে নিয়ে অফিসে যেতে হবে।  

আমি প্রবাসী অ্যাপ এর মাধ্যমে আবেদন

গুগল প্লে স্টোর থেকে আমি প্রবাসী অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে তারপর বিএমইটি রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে এর জন্য আপনাকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য, পাসপোর্ট তথ্য এবং অন্যান্য তথ্য এবং পাসপোর্ট স্ক্যান করে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে। এখানে পাসপোর্ট ভেরিফাই করার জন্য 72 ঘন্টা পর্যন্ত সময় নেওয়া হতে পারে। 

এই ৭২ ঘণ্টার ভিতরে আপনার পাসপোর্টটি ভেরিফাই হয়ে গেলে আপনি ৩০০ টাকা দিয়ে বিএমইটি রেজিস্ট্রেশন ফি পরিশোধ করে আবেদন সম্পন্ন করতে পারবেন। 

তারপর আমি প্রবাসী অ্যাপ এর হোম পেইজে চাকরি খুঁজুন নামে একটি অপশন পেয়ে যাবেন। আপনি এখানে বিভিন্ন প্রকার চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখতে পারবেন এখানে আপনার পছন্দ অনুযায়ী চাকরির বিস্তারিত দেখুন লেখাতে ক্লিক করে বেতন কত হবে? কত ঘন্টা কাজ করতে হবে ইত্যাদি সকল তথ্য দেখতে পারবেন। 

এরপর যে চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি আপনার পছন্দ হবে সেখানে আবেদন করুন নামে একটি বাটন থাকবে সেখানে ক্লিক করলে আপনার আবেদন সম্পন্ন হয়ে যাবে এবং আপনার আবেদনটি গ্রহণ করা হলে আপনাকে পরবর্তীতে মেসেজের মাধ্যমে জানিয়ে দিবে। 

মালয়েশিয়া যাওয়ার এজেন্সী

মালয়েশিয়ার অনুমোদিত বাংলাদেশের এজেন্সি গুলোর মাধ্যমেও মালয়েশিয়া যাওয়ার আবেদন করে নিতে পারবেন তবে জন্য অবশ্যই জেনেশুনে দেখে অনুমোদিত এজেন্সির মাধ্যমে আবেদন করার চেষ্টা করবেন তবে এজেন্সীর মাধ্যমে আবেদন করলেও আপনাকে বিএমইটি রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে।

দালাল ছাড়া মালয়েশিয়া ভিসা

অনলাইনে আবেদন সম্পন্ন করে যোগ্যতা অনুসারে মাত্র ৭৮,৯০০/- টাকায় দালাল ছাড়া মালয়েশিয়া যাওয়া যায়। যেখানে দালাল এর মাধ্যমে ৩-৪ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নেওয়ার কথা শোনা যায়। কিছু ক্ষেত্রে কর্মীগণ দালালের কাছে পাসপোর্ট ও টাকা জমা দেওয়ার পর জিম্মি করে ফেলে। তাই সরকারিভাবে মালয়েশিয়া যাওয়াই নিরাপদ। এবং সরকারিভাবে ঘোষনার আগ পর্যন্ত দালালের কাছে যাওয়া যাবে না। 

See also  নতুন ভোটার নিবন্ধন ২০২৩, NID Voter Registration services.nidw.gov.bd

মালয়েশিয়া ভিজিট ভিসা

মালয়েশিয়ার ভিসা প্রসেসিং ফি ৫৮০০ টাকা। এছাড়াও অন্যান্য আনুষাঙ্গিক খরচ মিলিয়ে ভিসার জন্য ৬০,০০০/- থেকে ১,০০,০০০ টাকা খরচ হতে পারে। 

বর্তমানে দুই ধরনের ভিজিট ভিসা রয়েছে। 

  1. সিঙ্গেল এন্ট্রি- যেটার মাধ্যমে সর্বোচ্চ একবার যাওয়া যায়।
  2. মাল্টিপল এন্ট্রি– যেটার মাধ্যমে ৫ বছরে কয়েকবার ভ্রমন করা যায়।

প্রতিবার ভিসা দিয়ে ৩০ থেকে ৯০ দিন ভ্রমন (অবস্থান) করা যায়। ভিসা ফি এক হলেও অন্যান্য ও ব্যক্তিগত খরচ মিলিয়ে ৬০ হাজার থেকে ১ লক্ষ টাকা খরচ হতে পারে। 

মালয়েশিয়া কাজের বেতন কত?

মালয়েশিয়া ফ্যাক্টরি কাজের বেতন

1,700-2,500 রিংগিত 40,000-59,000 টাকা

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কাজের বেতন

2,000-3,000 রিংগিত 47,000-71000   টাকা

মালয়েশিয়া কৃষি কাজের বেতন

1,300 রিংগিত 30,000 টাকা

মালয়েশিয়া কনস্ট্রাকশন কাজের বেতন

1,800-2,500  রিংগিত 42,000-59,000 টাকা

মালয়েশিয়া রেস্টুরেন্ট কাজের বেতন

 2,000-2,500 রিংগিত 47000-59,000 টাকা

প্রশ্নোত্তর ও শেষ কথা

মালয়েশিয়া যেতে কত বয়স লাগে?

শ্রমিক ভিসায় মালয়েশিয়া যেতে মিনিমাম ২১ বছর হতে হবে। 

মালয়েশিয়া যেতে কোন টিকা লাগে?

মালয়েশিয়া যেতে হলে আপনাকে অবশ্যই সুরক্ষা টিকার ২য় ডোজ সম্পন্ন করতে হবে। নির্দিষ্ট কোনো ভ্যাকসিন সিলেক্ট করা নেই। তবে যে কোনো ভ্যাকসিন এর ২য় ডোজ সম্পন্ন টিকার সনদ লাগবে। 

কাজের উদ্দেশ্যে বিদেশ গমন করা প্রত্যেকটি পরিবারের একটি বড় স্বপ্ন। তাই স্বপ্নকে সঠিকভাবে পূরণ করতে কখনই কোনো বিষয় নিয়ে অবহেলা করা উচিৎ নয়। প্রত্যেকটি ধাপ ও কাজ মনোযোগ দিয়ে গুরুত্বসহ করা উচিৎ। আর সরকারিভাবে মালয়েশিয়া গমনের ক্ষেত্রে নিরাপদে আপনি একটি দেশে কাজের উদ্দেশ্যে ভ্রমন করছেন। তাই সবসময় দালাল থেকে দূরে থাকবেন। আর সরকারি ঘোষনার পূর্ব পর্যন্ত দালালের স্বরনাপন্ন না হওয়াই উচিৎ।